Minister of SICT inaugurating SASEG campus

Honorable State Minister of Science and Information & Communication Technology, Government of People’s Republic of Bangladesh, Architect Yeafesh Osman officially inaugurating one of the SASEG campus. More »

SASEG Family Kushtia

SASEG Family Kushtia More »

Technology Festival 2011

SASEG jointly organized “Technology Festival 2011” with local organization “Projuktite Kushtia”. More »

Workshop on Information Technology in Barisal

Bangladesh Open Source Network and South Asian Specialized Education Group (SASEG) jointly organized a daylong freelance workshop on Information Technology in Royal Central College More »

Football tournament

Football tournament inauguration with guardians. More »

Entrepreneurship Development Seminar (2nd_session)

SASEG jointly organized “Entrepreneurship Development Seminar” with local organization “Projuktite Kushtia” in “Technology Festival 2011” More »

 

Vacancy Announcement 24/01/2016

Vacancy Announcement 24/01/2016

সাসেগ-গুরুকুল শিক্ষা পরিবারের সাথে রবি’র কর্পোরেট চুক্তি স্বাক্ষর

saseg-gurukul-robi-contract-signing

কুষ্টিয়া তথা দেশ সেরা কারিগরি শিক্ষা গ্রুপ সাসেগ-গুরুকুল শিক্ষা পরিবারের অন্যতম প্রতিষ্ঠান কামরুল ইসলাম সিদ্দিক ইন্সটিটিউট ও রবি আজিয়াটা মোবাইল অপারেটর কোম্পানির সাথে কর্পোরেট চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। রবি’র পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন এন্টারপ্রাইজ বিজনেস ম্যানেজার হাসিবুল হক, সাসেগ-গুরুকুল এর পক্ষে স্বাক্ষর করেন পরিচালক প্রশাসন মনির হাসান ও লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া সমন্বয়কারী শামীম রানা।
গতকাল কুষ্টিয়া শহরের কালিশংকরপুর সাসেগ ক্যাম্পাস-১ এর হলরুমে অনুষ্ঠিত চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাসেগ-গুরুকুল শিক্ষা পরিবারের প্রধান সমন্বয়কারী তানভীর মেহেদি সহ শিক্ষক, কর্মকর্তা কর্মচারী বৃন্দ।
উক্ত চুক্তির আওতায় সাসেগ-গুরুকুল শিক্ষা পরিবার তাদের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের জন্য ৫০০ রবি’র মোবাইল সিম ব্যবহারের মাধ্যমে রবি’র সাথে নতুন যাত্রা শুরু করলো। রবি এখন থেকে সাসেগ গুরুকুল শিক্ষা পরিবারকে তাদের সকল সেবা প্রদান করবে।

সাসেগ-গুরুকুল শিক্ষা পরিবারের আন্ত:টেকনোলজি বিজয় দিবস ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের উদ্ভোধন

SASEG Cricket Tournament

সাসেগ-গুরুকুল শিক্ষা পরিবারের আন্ত:টেকনোলজি বিজয় দিবস ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট-২০১৫ এর উদ্ভোধন হয়েছে। গতকাল সকাল ৯টায় কুষ্টিয়া শহরের হাউজিং নিশান মোড় সংলগ্ন একতা মাঠে অনুষ্ঠিত ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের উদ্ভোধন করেন কুষ্টিয়া গনপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রকৌশলী শহিদ মোঃ কবির ও বাসার ক্রিকেট একাডেমির পরিচালক আপন বাশার। সাসেগ-গুরুকুল শিক্ষা পরিবারের আন্ত:টেকনোলজি বিজয় দিবস ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট-২০১৫ এর উদ্ভোধনীর পূর্বে আন্ত:টেকনোলজি ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট-২০১৪ এর বিজয়ী ও রানার্সআপ দলের মধ্যে পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে বিজয় দিবস ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট আয়োজক কমিটির আহবায়ক নৃপেন কুমার সাহার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাসেগ-গুরুকুল শিক্ষা পরিবারের পরিচালক প্রসাশন মনির হাসান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া গনপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী জামাত আলী।
সম্মানীত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধান সমন্বয়কারী তানভীর মেহেদি, ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের একাডেমিক ইনচার্জ ইঞ্জিনিয়ার হেলাল উদ্দিন, মেডিকেল বিভাগের একাডেমিক ইনচার্জ মন্টু বাইন, সাসেগ-গুরুকুল শিক্ষা পরিবারের লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া সমন্বয়কারী শামীম রানা ও প্রমোশন বিভাগের প্রধান রফিকুল ইসলাম।
উদ্ভোধনী দিনে তিনটি খেলা অনুষ্ঠিত হয়। দিনের ১ম খেলায় সিভিল টেকনোলজি ২৪ রানে মেডিকেল ইন্সটিটিউটকে পরাজিত করে। ২য় খেলায় গার্মেন্টস ডিজাইন এন্ড প্যাটার্ণ মেকিং টেকনোলজি মেকানিক্যাল টেকনোলজিকে ৬ উইকেটে পরাজিত করে এবং দিনের শেষ খেলায় কম্পিউটার টেকনোলজিকে ৮ উইকেটে পরাজিত করে টেক্সটাইল টেকনোলজি জয়লাভ করে।
খেলা পরিচালনা করেন আরএস বিভাগের শিক্ষক আব্দুল মতিন, আতিকুল ইসলাম, টেক্সটাইল টেকনোলজির শিক্ষক মিরাজ আলী ও মেডিকেল টেকনোলজির শিক্ষক আলমগীর হোসেন। খেলার সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন টেক্সটাইল, গার্মেন্টস ডিজাইন এন্ড প্যাটার্ণ মেকিং টেকনোলজির বিভাগীয় প্রধান জান্নাতুল নাঈম, ইলেকটিক্যাল টেকনোলজির বিভাগীয় প্রধান সেজাউর রহমান, কম্পিউটার টেনকোলজির বিভাগীয় প্রধান চঞ্চল আলী, মেকানক্যিাল টেকনোরজির বিভাগীয় প্রধান আব্দুল খালেক ও সিভিল টেকনোলজির বিভাগীয় প্রধান পূর্নিমা রানী।
১ম দিনের খেলা শেষে আয়োজক কমিটির আহবায়ক নৃপেন কুমার সাহা জানান ১৬ই ডিসেম্বর বুধবার মহান বিজয় দিবসের দিন উক্ত ক্রিকেট টূর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হবে।

Excursion-2015 of Mechanical Engineering Technology of SASEG

excursion of mechanical trade

সাসেগ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত, কামরুল ইসলাম সিদ্দিক ইন্সটিটিউট মেকানিক্যাল টেকনোলজির শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সফর-২০১৫

সাসেগ-গুরুকুল ডিবেটিং ক্লাব কর্মশালা

SASEG-Gurukul Debating Club- Workshop-07-12-15-3

সাসেগ-গুরুকুল ডিবেটিং ক্লাব আয়োজিত আজ ০৭/১২/১৫ তারিখের বিতর্ক, উপস্থিত বক্তৃতা, উপস্থাপনা,শৃঙ্খলা ও ভাইভা বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা সম্পন্ন হয়েছে। সর্বসাকুল্যে প্রায় ৪১ শিক্ষার্থী অংশগ্রহন করেন । উক্ত প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন – জনাব আহসান কবীর রানা, সহযোগী অধ্যাপক , বিভাগীয় প্রধান,উদ্ভিদ বিদ্যা বিভাগ,কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ ও বিএনসিসি, বিটিএফও ক্যাপ্টেন, ড. আমানুর আমান. সম্পাদক ও প্রকাশক,দৈনিক কুষ্টিয়া,কুষ্টিয়া টাইমস, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট ,দি ডেইলি স্টার, আনোয়ার কবীর বকুল,সভাপতি,প্রযুক্তিতে কুষ্টিয়া এবং ইমাম মেহেদী- সভাপতি, কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ,ডিবেটিং ক্লাব। সমাপনি অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন – মীর মোশাররফ হোসেন, সহযোগী অধ্যাপক, বিভাগীয় প্রধান(রাষ্ট্রবিজ্ঞান), কুষ্টিয়া সরকারি মহিলা কলেজ ও সম্পাদক( জেলা রোভার স্কাউট), মনির হাসান, প্রশাসনিক পরিচালক, সাসেগ, প্রধান সমন্বয়কারী তানভীর মেহেদী, লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া সমন্বয়কারী ও সাসেগ-গুরুকুল ডিবেটিং ক্লাবের উপদেষ্টা শামীম রানা, একাডেমিক ইনচার্জ জনাব হেলাল উদ্দিন। সভাপতিত্ব করেন,  রাশনা শারমিন-  জুনি: ইন্স: ইলেকট্রক্যিাল ও মোডারেটর সাসেগ-গুরুকুল ডিবেটিং ক্লাব।

 

SASEG-Gurukul Debating Club- Workshop-07-12-15-4

 

SASEG-Gurukul Debating Club- Workshop-07-12-15-2

 

SASEG-Gurukul Debating Club- Workshop-07-12-15-1

Excursion-2015 of Mechanical Engineering Technology of SASEG

Excursion-2015 of Mechanical Engineering Technology of SASEG 1

Excursion-2015 of Mechanical Engineering Technology of SASEG 2

SASEG Debating Club Program

SASEG Debating Club

SASEG Debating Club Program

SASEG ট্রাষ্ট ফান্ডের উপবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান

১৬ জুলাই ২০১১ গতকাল সকাল সাড়ে দশটায় কুষ্টিয়া শহরের কালিশংকরপুরে অবস্থিত সাউথ এশিয়ান স্পেশালাইজড এডুকেশন গ্রুপ (SASEG) এর ক্যাম্পাস পদ্মায় সাসেগ ট্রাষ্ট ফান্ডের ২০১১ সালের উপবৃত্তি ঘোষণা ও কৃতি ছাত্র/ছাত্রীদের উপবৃত্তি চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠিত হয়। সাসেগ মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মু: ফজলুর রহমান। সাসেগ ট্রাষ্ট ফান্ডের আওতায় ২০১১ সালে ৯ টি নতুন ট্রাষ্ট ফান্ডের ঘোষণা দেন সাসেগ এর পরিচালক প্রযুক্তিবিদ সুফি ফারুক ইবনে আবুবকর। এবারে যেসকল ব্যক্তির নামে ট্রাষ্ট ফান্ড ঘোষণা করা হল তারা হলেন:

১. ফকির লালন শাহ

২. মীর মোশাররফ হোসেন

৩. কাঙ্গাল হরিনাথ মজুমদার

৪. ড: প্রফেসর হুমায়ুন আজাদ

৫. মুহাম্মদ আবুবকর

৬. সুফি মুহাম্মদ আইনুদ্দিন

৭. হাজী মোকাদ্দেস হোসেন

৮. গাজী হাবিবুর রহমান

৯. দানবীর আলাউদ্দিন আহমেদ

সাসেগ পরিচালিত কামরুল ইসলাম সিদ্দিক ইন্সটিটিউট (QISI) এর কৃতি ছাত্র/ছাত্রীদের মধ্যে উপবৃত্তি চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এফ বি এ বি কুষ্টিয়া শাখার সভাপতি আক্কাস আলী মঞ্জু, কামরুল ইসলাম সিদ্দিক ইন্সটিটিউটের সহযোগী পরিচালক মোঃ ইয়াসিন আলী, কুষ্টিয়া পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের পাওয়ার টেকনোলজির চিফ ইন্সট্রাক্টর মোঃ লিয়াকত আলী, কামরুল ইসলাম সিদ্দিক ইন্সটিটিউটের পরিচালনা পর্ষদ সদস্য মনির হাসান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কামরুল ইসলাম সিদ্দিক ইন্সটিটিউটের ছাত্র/ছাত্রী ও অভিভাবক বৃন্দ। প্রযুক্তিবিদ সুফি ফারুক ইবনে আবুবকর তার সভাপতির বক্তব্যে বলেন – বাংলাদেশের জনসংখ্যাকে জন সম্পদে পরিণত করতে কারিগরি ও কর্মমুখী শিক্ষার প্রসারে সাসেগ ইতিমধ্যেই বেস কয়েটি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপন করেছে ও আরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠান স্থাপন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। যেখান থেকে স্বল্প খরচে শিক্ষার্থীরা দ্রুত সময়ে যথাযথ কর্মমুখী শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশ গঠনে অবদান রাখতে পারবে। আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও কুষ্টিয়ার খ্যাতনামা শিল্পীদের পরিবেশনায় এক মনোজ্ঞ ব্যান্ড শো আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের সঞ্চালন করেন সাসেগ এর সমন্বয়কারী তানভীর মেহেদী ও এডমিন অফিসার আনোয়ার কবির বকুল।

Textile 2nd and 4th Exam Routine

Textile 2nd and 4th Exam Routine

উদ্যোক্তা পরিচয়

উদ্যোক্তা পরিচয়ের একটি বড় সমস্যা হয়ে গেছে আমাদের মাথায় বসানো কিছু শব্দ। কিছু ধনাত্মক শব্দের অতীব ঋণাত্মক ব্যবহার। আমরা উদ্যোক্তা হিসেবে যাঁদের কথা বলছি আমাদের সমাজে তাঁদের পরিচয় হয় “ব্যবসায়ী” শব্দটি দিয়ে। আমরা ধরে নেই সেটি খুব খারাপ কাজ। শুধু খারাপ মানুষেরাই শেষ পর্যন্ত ব্যবসায়ী হয়ে যায়। তাছাড়া ব্যবসায়ী হওয়ার জন্য কোন যোগ্যতা লাগে না। এরকম আরও একটি  শব্দ হচ্ছে “মুনাফাখোর”। শব্দটি যেন “ঘুষখোর” এর মতই ঘৃণ্য। বক্তৃতা বিবৃতিতে এই শব্দটি ঘুষখোর ধরনের শব্দগুলোর সাথে নিয়মিত ব্যবহার হয়। ব্যবহারের কারণে এই শব্দগুলো শুনলে মনের অজান্তেই – অশিক্ষিত, সংস্কৃতিহীন, লোভী, ধূর্ত ও চরিত্রহীন একজন ব্যক্তির ছবি ভেসে ওঠে।

এছাড়া ব্যবসায়ীকে আমরা মাপি তাঁর টাকার পরিমাণ দিয়ে, অফিস, গাড়ি, বাড়ির চাকচিক্য দিয়ে। কখনও দেখি না তাঁর কাজটা কী। তা দিয়ে সমাজ বা রাষ্ট্রের কী উপকার হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা মিনমিন করে মাঝে মধ্যে বলতে চান। তবে আমরা সচেনত জনগোষ্ঠি সেই কথায় কান দেব কেন?

অথচ স্বার্থক ও সফল উদ্যোক্তা হবার সঙ্গে ওগুলোর কোন সম্পর্কই নেই। ব্যবসা করা ও মুনাফা নেয়া আইনগতভাবে (ও ধর্মমতে) স্বীকৃত ও বৈধ কাজ। সেই কাজটি ভালভাবে করার জন্য অত্যন্ত যোগ্য এবং বহু গুনের অধিকারী হতে হয়। একটি ব্যবসায়ের উদ্যোগ – কিছু লোক, সমাজ ও রাষ্ট্রের উপকার করে, কিছু ক্ষেত্রে সামান্য ক্ষতিও করতে পারে। উপকারের পরিমাণ বেশি হলে সেই ব্যবসায়ী কেন সম্মানিত হবেন না।

তার উপরে উদ্যোক্তা মানে ব্যবসায়ী ছাড়াও অনেক কিছু। তিনি অত্যন্ত উঁচু মানের একজন শিল্পী। যিনি শুধু ব্যবসা চালান না, নতুন ব্যবসা সৃষ্টিও করেন। সেটি থেকে কখনও মুনাফা নেন, কখনও শুধুমাত্র পারিশ্রমিক। তাঁর টাকার পরিমাণ সফলতা মাপার একটি গুরুত্বপূর্ণ মানদণ্ড বটে। তবে তা একমাত্র মানদণ্ড নয়। উদ্যোক্তা হতে সাধারণ যোগ্যতার বাইরেও অনেক যোগ্যতা লাগে। চরিত্রহীন হওয়া সফল উদ্যোক্তা হওয়ার কোন যোগ্যতা নয়। বরং সফল হবার জন্য চরিত্রবান হওয়া একটি গুরুত্বপূর্ণ যোগ্যতা। প্রতিটি পেশায় ভাল ও খারাপ মানুষ থাকে। যারা আজ সফল, তাদের বেশিরভাগ কাজের উদ্দেশ্য ও ফলাফল তুলনামূলক ভাল।

এসকল কারণে উদ্যোক্তারা পরিচয় দিতে লজ্জা পান। কিন্তু এই ব্যবস্থা পরিবর্তন করতে হবে। লজ্জা পেলে চলবে না। গুরুত্ব ও শ্রদ্ধার সাথে নিজের এবং অন্য উদ্যোক্তার পরিচয় দিতে হবে। গুরুত্ব দিতে দিতেই একসময় পরিচয়টি গুরুত্বপূর্ণ হয়। পরিচয়টি দিতে হবে টাকার পরিমাণ দিয়ে না। কাজের ধরণ এবং তার ফলাফল দিয়ে।